পেসার তানজিম হাসান সাকিবের পরিবার এখন শঙ্কিত!

মো: আতিক উল্লাহ
  • প্রকাশিত সময় : বুধবার, ২০ সেপ্টেম্বর, ২০২৩
  • শেয়ার করুন

  • Facebook

এশিয়া কাপে দারুন নৈপুণ্যে ভারতকে হারিয়ে দেশের পাশাপাশি পরিবারের জন্যও গৌরব এনে দিয়েছিলেন পেসার তানজিম হাসান সাকিব। সেই গর্বিত পরিবারই এখন শঙ্কিত! জাতীয় দলের ক্রিকেটারের পুরনো কিছু ফেসবুক পোস্ট নিয়ে তুমুল সমালোচনার পর তাঁর পরিবার ‘শঙ্কিত’ বলে গতকাল জানিয়েছেন বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) ক্রিকেট পরিচালনা কমিটির প্রধান জালাল ইউনুস। একই সঙ্গে তিনি জানিয়েছেন, ক্ষমা প্রার্থনার পাশাপাশি বিতর্কিত সেই পোস্টগুলো সরিয়ে ফেলেছেন এশিয়া কাপে অভিষিক্ত এই পেস বোলার। ভবিষ্যতে সাকিবকে পর্যবেক্ষণে রাখা হবে বলেও জানিয়েছে বিসিবি।

আন্তর্জাতিক অভিষেকে ভারতের বিপক্ষে শেষ ওভার বোলিং করা তানজিম হাসানকে নিয়ে হুল্লোড়ের মাঝেই ফেসবুকে ছড়িয়ে পড়ে বিতর্কিত পোস্টগুলো। এর মধ্যে ধর্মের বাতাবরণে তাঁর একটি পোস্ট কর্মজীবী নারীদের পরোক্ষ আক্রমণ করার তুল্য। সেই পোস্টের মোদ্দাকথা, কর্মজীবী নারী কোনো সংসারের জন্য সুখকর নয়। যদিও বাংলাদেশের অর্থনীতিতে কর্মজীবী নারীদের ভূমিকা উল্লেখযোগ্য।

বিশ্বব্যাংকের জরিপ বলছে, বাংলাদেশের ৩২.৬৭ শতাংশ নারী কর্মজীবী। স্বভাবতই তানজিম হাসানের পোস্ট নিয়ে সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমে তীব্র প্রতিক্রিয়া হয়েছে নারীসমাজে। নারী স্বাধীনতায় বিশ্বাসী পুরুষরাও সমালোচনা করেছেন জাতীয় দলের এই ক্রিকেটারের। এর তীব্রতায় গতকাল সংবাদমাধ্যমের মুখোমুখি হয়েছেন জাতীয় দলের মূল অভিভাবক কমিটি, ক্রিকেট অপারেশন্সের প্রধান জালাল ইউনুস। তিনি বলেন, ‘ক্রিকেট অপারেশন্স থেকে তানজিম সাকিবের সঙ্গে আমাদের আলোচনা হয়েছে। ওর সঙ্গে আমরা কথা বলেছি। মিডিয়া কমিটি থেকেও তার সঙ্গে যোগাযোগ করা হয়েছে। ’

সেই যোগাযোগের ফলও জানিয়েছেন জালাল, “তাকে (তানজিম হাসান সাকিব) আমরা অবগত করেছিলাম, যেসব পোস্ট ফেসবুকে এসেছে- তার বক্তব্য হচ্ছে, সে কাউকে আঘাত করার উদ্দেশে এ রকম পোস্ট দেওয়ার কথা না। সে যেসব পোস্ট দিয়েছে, তার নিজের থেকে দিয়েছে, কাউকে উদ্দেশ করে না। এটা দেওয়ার পর কারো যদি আঘাত লেগে থাকে, হি ইজ সরি ফর দ্যাট। একটা কথা এসেছে নারীদের ব্যাপারে। নারীদের ব্যাপারে যেসব পোস্ট ছিল, সে বলেছে, ‘আমি এটার দায়-দায়িত্ব নিচ্ছি। আমি নারীবিদ্বেষী নই। এই দাবি পুরোপুরি উড়িয়ে দিয়েছে। সে বলেছে, আমার মা একজন নারী। আমি কোনো দিনও নারীবিদ্বেষী হতে পারি না। ’ এটা হচ্ছে তাঁর বক্তব্য। ”

নারীদের নিয়ে তানজিম হাসানের আরেকটি পোস্ট ভাইরাল হয়েছে ফেসবুকে। সেখানে তিনি কয়েক যুগ আগের একটি ছবি পোস্ট করে লিখেছেন, ‘সোনালী অতীত’। সেই ছবিতে দুজন রিকশারোহীর একজন নারী, যিনি আপাদমস্তক বোরকায় আবৃত। আরেকটি পোস্টে তিনি মন্তব্য করেছেন যে, বিশ্ববিদ্যালয়ে সহপাঠীদের সঙ্গে আড্ডা দিয়ে অভ্যস্ত মেয়েরা নিজের সন্তানের জন্য একজন লজ্জাশীলা মা দিতে পারবেন না। এসবেরও অনেক আগে, যখন তানজিম সাকিবের বয়স মাত্র ১১, তখন বিজয় দিবস উদযাপন নিয়ে প্রশ্ন তুলেছিলেন। সেই পোস্টটিও যথারীতি এখন আর নেই। ২০১১ সালের সেই পোস্ট নিয়ে তাঁর বিরুদ্ধে দেশদ্রোহিতার মামলা ঠোকার দাবিও কেউ কেউ করেছেন ফেসবুকে।

বাংলাদেশ ক্রীড়া শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের (বিকেএসপি) সাবেক এই শিক্ষার্থী এখন অতীত কর্মকাণ্ডের জন্য দুঃখ প্রকাশ করেছেন বিসিবির কাছে। “সে বলেছে, ‘আমি দুঃখিত’। আমরা সতর্ক করেছি, ভবিষ্যতে যেন এমন পোস্ট না দেওয়া হয়। সে বলেছে, এ ধরনের পোস্ট দেওয়া থেকে বিরত থাকবে। সে একটা বড় কথা বলেছে—সে নারীবিদ্বেষী নয়। সে বলেছে, ‘আমার মা-ও তো একজন নারী। আমি কীভাবে নারীবিদ্বেষী হতে পারি!’” কিন্তু এটুকুতেই স্বস্তির হাওয়া বইছে না বিসিবিতে। অন্তত তাঁকে ঘিরে জালাল ইউনুসের পরের মন্তব্যে সেই ইঙ্গিত রয়েছে, ‘(তানজিম হাসান কারোর দ্বারা প্রভাবিত কি না) অবশ্যই এটা আমাদের কাছে গুরুত্বপূর্ণ। আমরা তাকে পর্যবেক্ষণ করব। তার পরিবারও এ ব্যাপারে খুবই শঙ্কিত। এমন পরিস্থিতি তারাও আশা করেনি। তারাও দুঃখিত। সামনে বিশ্বকাপ আছে। সে একটা তরুণ, বয়স কম। এ জন্য তাকে সতর্ক করে দেওয়া হয়েছে। এর পরও ওরকম কিছু যদি থাকে, তাহলে আমরা অবশ্যই তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেব। ’

বয়সভিত্তিক ক্রিকেট থেকে বিসিবির তত্ত্বাবধানে তানজিম হাসান। বয়সও কম। তাই এই তরুণ পেসারের কাঁধ থেকে এখনই সমর্থনের হাত তুলে নিচ্ছে না বিসিবি। ‘ক্ষমা চেয়েছে। তার সঙ্গে আমরা আলাপ-আলোচনা করব। যদি এমন কোনো সমস্যা থাকে, অবশ্যই আমরা সেই সহায়তাও করব’, প্রয়োজনে তানজিম হাসান সাকিবের মনোজগতের বাঁকবদলের চেষ্টা বোর্ডের তরফ থেকে করা হবে বলে ইঙ্গিত দিয়েছেন জালাল ইউনুস। কিন্তু মুদ্রার অন্যপিঠও আছে। সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমে পুরনো পোস্টের জন্য বাহবাও পেয়েছেন তানজিম হাসান সাকিব। এঁদের মধ্যে সবচেয়ে হাই প্রফাইল জাতীয় দলের অলরাউন্ডার মেহেদী হাসান মিরাজ। দুপুরে জালাল ইউনুসের বক্তব্যের রেশ না কাটতেই সন্ধ্যায় তানজিম হাসানকে সান্ত্বনা দিয়ে নিজের ফেসবুকে পোস্ট করেছেন তিনি, ‘শুভ কামনা রইল তানজিম হাসান সাকিব, আল্লাহ তোমার সহায় হোক। সরল সত্যের পথে অটুট থাকো। ’ তানজিম হাসানের সমর্থনে এমন পোস্ট দেওয়ার জন্য মিরাজকে নিজের ফেসবুক পোস্টে ধন্যবাদ জানিয়েছেন অভিনেতা জিয়াউল হক পলাশ। তবে কিছুক্ষণ পর নিজের পোস্টটি মুছে ফেলেন মেহেদী মিরাজ। যদিও সেটির কপি শোভা পাচ্ছে অনেকের ফেসবুক পেজে।

source: online desk

 

মন্তব্য করুন

এই বিভাগের আরো খবর