Cricketkhor

"ডাল ভাতের সাথে ক্রিকেট খাই,
টাইগারদের জন্য গলা ফাটাই"

থামতে হলো বিজয়কে!

Arfin Rupok

Arfin Rupok

থামলেন বিজয়? না, বিজয় থামেননি; তাকে থামিয়ে দিয়েছে। কেননা ডিপিএলের চলতি আসরের শেষ ম্যাচটি খেলে ফেলেছেন তিনি। কি দুর্দান্ত একটা মৌসুম কাটালেন তিনি। বাইশ গজে ব্যাট হাতে এতোটাই দুর্দান্ত ছিলেন যে ১৫ ইনিংসের মাঝে মাত্র ৩ বার ৫০ রানের নিচে আউট করতে পেরেছে প্রতিপক্ষের বোলাররা।

১৫ ইনিংস, নামের পাশে জ্বলজ্বল করছে ঠিক ১১৩৮ রান! এতেই গড়ছেন বিশ্ব রেকর্ড। কেননা বিশ্বের আর কোনো ব্যাটার লিস্ট ‘এ’ ক্রিকেটের এক আসরে বিজয়ের সময় রান করতে পারেনি। এতোদিন যিনি শীর্ষে ছিলেন এবার তার চেয়েও ২২১ রান বেশী করতে সক্ষম হয়েছে প্রাইম ব্যাংকের জার্সিতে খেলতে নামা এনামুল হক বিজয়।

কিছুদিন আগে অনুষ্ঠিত হওয়া বিপিএলেও দারুণ ব্যাটিংয়ে নজর কাড়া বিজয় বছর খানেক আগেই কাটিয়েছিলেন বাজে সময়। পনেরোর বিশ্বকাপে ইনজুরি তাকে ছিটকে দিয়েছিলো জাতীয় দল থেকে। এরপর ঘরোয়া ক্রিকেটেও হাসছিলো না বিজয়ের ব্যাট। অবশেষে চলতি ডিপিএলে হেসেছে তার ব্যাট! এতোটাই হেসেছে যে ব্যাট হাতে বিশ্ব রেকর্ডই গড়ে ফেলেছেন। কথায় আছে সময় আপনাকে দ্বিতীয় বার সুযোগ দিবে। আর আপনি যদি বিজয়ের মতো করে সেটিকে লুফে নিতে পারেন তাহলে আপনি সফলতা পেতেই পারেন!

১৫ ইনিংসে ৯ ফিফটি, ৩ সেঞ্চুরি! কতোটা ফর্মে থাকলে এমনটা সম্ভব সেটি বিজয়কে দেখলেই বোঝা যায়। পাওয়ার হিটিংয়ে বেশ খানিকটা উন্নতি লক্ষ্যনীয়। আসরে ৯৯ চার ও ৪৭ ছক্কা অন্তত সেটিই বলে। কিন্তু স্ট্রাইক রোটেশনে কিংবা বড় স্কোরের চাপে পড়ে খেয় হারিয়ে ফেলার অভ্যাসটা যেনো রয়েই গেছে। এতো সাফল্যের পরেও এই বিষয়গুলো হাইলাইটস করছি কেনো? কেননা, আন্তর্জাতিক অঙ্গনে এই ভুলগুলো বিজয়কে পিছিয়ে দিতেই পারে! বিজয় নিশ্চয়ই তার দূর্বলতা নিয়ে ভাবেন, এবং সেগুলো নিয়ে সামনে কাজ করবেন সেটি বলতেই হয়।

চলতি আসরে সর্বোচ্চ রান(১১৩৮), এক ম্যাচে সর্বোচ্চ স্কোর(১৮৪), ৫০০+ রান করা ব্যাটারদের মাঝে সর্বোচ্চ গড়(৮১.২৯), সর্বোচ্চ ছক্কা(৪৭), সর্বোচ্চ চার(৯৯), সর্বোচ্চ ফিফটি(৯) ও সর্বোচ্চ সেঞ্চুরি(৩) সবটাই তার দখলে। এমনকি আসরে বল হাতেও দুই দু’টি উইকেট পকেটে পুড়েছেন বিজয়!

উত্থান পতনের গল্পে বিজয় মুদ্রার দুই পিঠই দেখে ফেলেছেন ইতিমধ্যেই। এবার পালা সবকিছু ভুলে নতুন করে এগিয়ে যাওয়ার। সামনে বাংলাদেশ এ দলের হয়ে বিজয়কে দেখা যাবে সেটি অনেকটাই নিশ্চিত করেছে বিসিবি থেকে। সেখানে ভালো পারফরম্যান্স করতে জাতীয় দলের দরজা খুলতে পারে বিজয়ের। সেদিন অনেক বাকি, এখন বর্তমানের সাফল্যের জন্য বিজয়কে একটা ধন্যবাদ দেওয়ায় যায়।

অভিনন্দন বিজয়!