Cricketkhor

"ডাল ভাতের সাথে ক্রিকেট খাই,
টাইগারদের জন্য গলা ফাটাই"

প্রথম টেস্টে এ দলের জয় ইনিংস ব্যবধানে

Sayem

Sayem

জয় দিয়ে তামিলনাড়ু সফর শুরু করেছে বাংলাদেশ এ দল। চেন্নাইয়ে প্রথম চারদিনের অনানুষ্ঠানিক টেস্ট ম্যাচে মিঠুনের দলের জয় ইনিংস ব্যবধানে!

শতক মিস করেছেন সাদমান ইসলাম

এম এ চিদাম্বারাম স্টেডিয়ামে মঙ্গলবার টস জিতে আগে ব্যাটিংয়ে নামা বাংলাদেশ দারুণ ব্যাটিং করে। প্রথমদিনে সাদমান ও মিঠুনের ফিফটিতে ২৩০ রান তোলে বাংলাদেশ। প্রথমদিনে সাইফ ৩৮ রান করার পর সাদমান ৮৯ রানে সাজঘরে ফিরলেও পরদিন সকালে শতক তুলে নেন ক্যাপ্টেন মোহাম্মদ মিঠুন। শতকের পর হাত খুলে ব্যাট করেন মিঠুন, টেল এন্ডারদের কাছ থেকে ছোট ছোট সাপোর্ট পেয়ে দেড়শো পার করেন তিনি। নয় উইকেটের পতন ঘটার পর ইনিংস ঘোষণা করে বাংলাদেশ। মিঠুন ৮ ছক্কা ও ১০ চারে ১৫৬* রান করেন। ১২৭ ওভারে ৩৪৯-৯ রান তোলে বাংলাদেশ, যা জয়ের জন্য যথেষ্ট ছিলো।

অধিনায়কোচিত ইনিংস খেলে দলকে বড় সংগ্রহ এনে দিয়েছেন মিথুন

দ্বিতীয় দিনের দ্বিতীয় সেশনে ব্যাটিংয়ে নেমে বাংলাদেশের বোলারদের তোপে পড়ে রঞ্জি ট্রফির দলটি। চা বিরতের আগে দুই উইকেট হারানো স্বাগতিকেরা শেষ সেশনে পাঁচটি উইকেট হারায়। পরদিন সকালে ৯৩ রানের মাথায় অল আউট হয়ে যায় তারা। রেজাউর রহমান রাজা পাঁচটি উইকেট নেন। তাইজুল নেন চারটি।

দুই ইনিংসে রাজা নিয়েছেন সাত উইকেট

বড়সড় লিড পেয়ে বাংলাদেশ ফলো-অনে পাঠায় তামিলনাড়ুকে। প্রথমদিন আবহাওয়া ঠিকঠাক থাকলেও পরের দুই দিন বাংলাদেশের বোলিং ইনিংসে বৃষ্টি বারবার বাঁধা দেয়। তবে বাংলাদেশের বোলাররা তাদের কাজটা যথাযথভাবে পালন করেন।
ফলো-অনে নেমে দুই ওপেনারকে দ্রুত হারালেও মিডল অর্ডারের ভরসায় ম্যাচে ঘুরে দাঁড়ায় তামিলনাড়ু। ৯৮-৬ ও ১৪২-৭ এর পর অষ্টম উইকেটে শতরানের জুটি গড়ে ফেলে স্বাগতিকদের শেষ দুই স্বীকৃত ব্যাটার। আজিত রাম এবং অশ্বিন ক্রাইস্ট উভয়ে ফিফটি করেন। সাদমানের দারুণ রান আউটে এই জুটি ভাঙতে সক্ষম হয় বিসিবি একাদশ। এরপরের ৮ রানে শেষ উইকেটগুলো তুলে নিয়ে জয় নিশ্চিত করে বাংলাদেশ একাদশ। এই ইনিংসে তাইজুল পাঁচ উইকেট দখল করেন। দ্বিতীয় ইনিংসে তামিলনাড়ু ব্যাটারদের দারুণ প্রতিরোধ সত্ত্বেও ইনিংস এবং ৪ রানের ব্যবধানে জয় তুলে নেয় সফরকারীরা।

দুই ইনিংসে ৯ উইকেট নিয়ে ম্যাচসেরা হন তাইজুল ইসলাম।

মাস দেড়েক পর ভারত আসবে বাংলাদেশে। সেখানে চ্যাম্পিনশিপের দুটো টেস্টও থাকবে। টেস্ট দলের বেশ ক’জন ক্রিকেটার আছেন এই সফরে। ভারতের সর্বোচ্চ পর্যায়ের লংগার ভার্সন টুর্নামেন্ট রঞ্জি ট্রফিতে নিয়মিত খেলা তামিলনাড়ু দলের সঙ্গে খেলে প্রস্তুতিটা দারুণ হচ্ছে বাংলাদেশের। অবশ্য সাবেক টেস্ট কাপ্তান মুমিনুল, ওপেনার জয়ের পারফরম্যান্স ম্যানেজমেন্টকে চিন্তায় ফেলবে। ওপেনার সাদমান ও সাইফের রানে ফেরা এবং এ দলে মিঠুনের ধারাবাহিকতা প্রশংসনীয়, টেস্ট দলে আবারও ফেরার সর্বাত্মক প্রচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন এই ব্যাটার। বোলিংয়ে জাতীয় দল, ঘরোয়া ক্রিকেট বা এ দল, সর্বত্র ধারাবাহিকতার ছাপ রেখে যাচ্ছেন তাইজুল ইসলাম। খালেদ এবং নাঈম মাঝারি মানের বোলিং করলেও রেজাউর রাজা পেস বোলিংয়ে আগুন ঝরাচ্ছেন।

এই সফরে পরবর্তী চারদিনের ম্যাচ হবে ১ নভেম্বর থেকে। দুই টেস্টের সিরিজ শেষে ৭, ৯ ও ১১ নভেম্বর তিনটি একদিবসীয় ম্যাচ খেলে আসবে টাইগারদের এ দল।

সংক্ষিপ্ত স্কোরঃ
বাংলাদেশ প্রথম ইনিংস ৩৪৯-৯(১২৭)
জয় ৩, সাদমান ৮৯, সাইফ ৩৮, মুমিনুল ২, মিঠুন ১৫৬*, বিজয় ২, জাকের ১৫, তাইজুল ৮, নাঈম ১, রাজা ৮; আজিত রাম ৮৪/৪, ভিগনেশ ৬৫-৪।
তামিলনাড়ু প্রথম ইনিংস ৯৩-১০(৪৬.৫)
প্রাদোশ রঞ্জন ২৮, সুনীল কৃষ্ণ ১৩, বাবা ইন্দ্রজিথ ১১; খালেদ ১০-৫-৯-১, তাইজুল ১৯-২-৪০-৪, রেজাউর ১০.৫-১-২৩-৫, নাঈম ৭-১-১৫-০।
তামিলনাড়ু দ্বিতীয় ইনিংস (ফলো-অন) ২৫২-১০(৮৪.২)
অশ্বিন ৫৭, অজিত ৫৫, গনেশ ৪৮;
তাইজুল ৩৬.২-৭-৯৬-৫, খালেদ ১৩-৩-৩৬-২, রেজাউর ১২.৫-২-৪৮-২, নাঈম ১৭-৩-৪৫-০, মিঠুন ৩.১-১-৭-০, মুমিনুল ২-০-৯-০ |