Cricketkhor

"ডাল ভাতের সাথে ক্রিকেট খাই,
টাইগারদের জন্য গলা ফাটাই"

প্রথম টেস্টে বাংলাদেশের জয় ১০ উইকেটে!

Sayem

Sayem

জয় দিয়ে শুরু হয়েছে বিসিবি অনূর্ধ্ব-১৬ দলের আসাম সফর। আজ গুয়াহাটিতে এসিএ অনূর্ধ্ব-১৬ দলকে তারা দশ উইকেটের বড় ব্যবধানে হারিয়ে শুভসূচনা করেছে। তিন দিনের টেস্ট ম্যাচের দ্বিতীয় দিনে সকালেই ম্যাচের ফল নিজেদের পক্ষে নিশ্চিত করেছে বাংলাদেশের ছেলেরা, চার ইনিংস মিলিয়ে খেলা হয়েছে মোটে ৯৩ ওভার!

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে অতিথিদের সঙ্গে উভয় দলের প্লেয়ার-স্টাফরা

আমিনগাঁও ক্রিকেট গ্রাউন্ডে গতকাল টস জিতে আগে বোলিং এর সিদ্ধান্ত নেয় বাংলাদেশ। বৃষ্টি বাঁধার প্রথম সেশনেই সাত উইকেট হারিয়ে বসে স্বাগতিকেরা। শেষদিকে একলাভিয়ার ২০ ও প্রবালের ১২ রানে ভর করে প্রথম ইনিংসে সবকটি উইকেট হারিয়ে ৭৭ রান করতে সক্ষম হয় আসাম। বাংলাদেশের হয়ে শিহাব চার ও সাদ ইসলাম রাজিন ৩ উইকেট নেন।

ব্যাটিংয়ে নেমে বিপর্যয়ে পড়ে বাংলাদেশ। দুই ওপেনারকে দ্রুত হারালেও মিডল অর্ডারের তিন ব্যাটারের দৃঢ়তায় ৮০ রানের লিড নেয় বাংলাদেশ। আব্দুল্লাহ’র ৪২ ও দেবাশীষের ২৩ রানের পর হাসানুর জামান খেলেন ৩৮ বলে ঝড়ো ৬২ রানের ইনিংস। ৫ ছক্কা ও ৬ চারে হাসানুর জামানের ইনিংসের পরবর্তী ৬ ব্যাটারের পাঁচজনই করেন ০! অতিরিক্ত খাত থেকে ১৮ রান আসলে বাংলাদেশ অল আউট হয় ১৫৭ রানে। স্বাগতিকদের সেরা বোলার দ্যুতিময় নেন ৪ উইকেট, মোহিত শিকার করেন তিনটি।

জবাবে ব্যাটিংয়ে নেমে আবারও আসামের ব্যাটিং অর্ডার বিধ্বস্ত হয় বাংলাদেশের সামনে। ২৫ রানের পাঁচজন ব্যাটারকে সাজঘরে ফেরান শিহাব-রাতুল। দিনের শেষে আরও দুই উইকেট হারিয়ে ৪৭ রান সংগ্রহ করে আসাম৷ তখনো তারা পিছিয়ে ৩৩ রানে। দ্বিতীয় দিনের প্রথম ওভারেই উইকেটের পতন ঘটে স্বাগতিকদের৷ প্রথম ইনিংসের মতো এবারও একলাভিয়া সর্বোচ্চ রান করেন, তার ঝড়ো ২৮ ও প্রবালের ১২ রানের কল্যাণে ৮০ রানে অল আউট হয় আসাম। সামিউন বশির রাতুল চারটি উইকেট নেন।

প্রথম ইনিংসে বাংলাদেশের ৮০ রানের লিড পার করে আসাম, তবে পার করেই অল আউট হওয়ায় বাংলাদেশের লক্ষ্যমাত্রা দাঁড়ায় মাত্র এক রানের। অগত্যা দুই ওপেনার আবারও প্রস্তুত হয়ে মাঠে নামেন। জাওয়াদ আবরার দ্বিতীয় বলেই ডিপ মিড উইকেট অঞ্চলের মাঝ দিয়ে চার মেরে ম্যাচের ইতি ঘটান। বাংলাদেশ জয় পায় ১০ উইকেটে।

ম্যাচসেরা রংপুরের শিহাব

দুই ইনিংস মিলিয়ে ৬ উইকেট নিয়ে ম্যাচসেরা হন স্কুল ক্রিকেটের বিস্ময়বালক লেগস্পিনার সাইখ ইমতিয়াজ শিহাব।
সফরে দুটো টেস্ট ও তিনটি ওয়ানডে খেলবে বাংলাদেশ। যার প্রথমটিতে জয় নিশ্চিত করে সিরিযে এগিয়ে গেল বাংলাদেশ। একই ভেন্যুতে দ্বিতীয় টেস্ট ম্যাচ হবে ৩ আগস্ট।

সংক্ষিপ্ত স্কোরকার্ডঃ


প্রথম ইনিংস:
আসাম অ১৬৭৭/১০(৩৬.৩)
একলাভিয়া ২০, প্রবাল ১২, দেবরাজ ১০ ও অতিরিক্ত ১৫;
শিহাব ১০-৫-১৭-৪, রাজিন ৮.৩-৩-১১-৩, সানজিত ৭-১-১৮-২, আল ফাহাদ ৭-৪-১৭-১, রাতুল ৪-২-৮-০।
বাংলাদেশ অ১৬– ১৫৭/১০(২৭.২)
জাওয়াদ ০, তামিম ৮, আব্দুল্লাহ ৪২, দেবাশীষ ২৩, হাসানুরজ্জামান ৬২, রাতুল ৪, তাসিব-শিহাব-রাজিন-ফাহাদ-সানজিত* ০ ও অতিরিক্ত ১৮;
দ্যুতিময় ৩৫-৪, মোহিত ৪৬-৩, একলাভিয়া ২৩-২ |
দ্বিতীয় ইনিংস:
আসাম অ১৬- ৮০/১০(২৮.৪)
একলাভিয়া ২৮*, প্রবাল ১২, দেবরাজ-দ্যুতিময় ৯ ও অতিরিক্ত ৬;
রাতুল ৫.৪-১-৮-৪, তামিম ৩-১-৬-২, রাজিন ৫-২-১৪-২, শিহাব ৯-২-৩৫-২, সানজিত ৬-০-১১-০।
বাংলাদেশ অ১৬- ৪/০(০.২)
জাওয়াদ ৪* |
ফলাফলঃ বিসিবি অনূর্ধ্ব-১৬ দল ১০ উইকেটে জয়ী।
ম্যাচসেরাঃ সাইখ ইমতিয়াজ শিহাব (১৭-৪ ও ৩৫-২) ||