Cricketkhor

"ডাল ভাতের সাথে ক্রিকেট খাই,
টাইগারদের জন্য গলা ফাটাই"

ফেভারিট বাংলাদেশ ব্যাকফুটে থেকেও আত্নবিশ্বাসী

Sayem

Sayem

মার্চে নিজেদের অভিষেক বিশ্বকাপে দারুণ সময় কাটানো বাংলাদেশ নারী দল দীর্ঘ পাঁচ মাস পর প্রতিযোগিতামূলক ক্রিকেটে নামছে। মাঝে কয়েকটি ডমেস্টিক টুর্নামেন্ট এবং ক্যাম্প করা বাংলাদেশ দল বেশ আত্নবিশ্বাসী। আবুধাবিতে ৮ দলের আইসিসি নারী টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ বাছাইপর্ব ২০২২ শুরু হচ্ছে আজ।

টুর্নামেন্টে ফেভারিট হিসেবে যাওয়া ডিফেন্ডিং চ্যাম্পিয়নরা প্রথম ম্যাচ খেলার ৪৮ ঘন্টা আগে পেয়েছে বড় দুঃসংবাদ। পেসার জাহানারা আলম ইঞ্জুরিতে পড়ে ছিটকে গেছেন টুর্নামেন্ট থেকে, তার পরিবর্তে দলে ফারিহা ইসলাম তৃষ্ণা। জাহানারার অভাব মেটানোর সুযোগ থাকবে পেসারদের কাছে। তবে এরচেয়ে বড় ধ্বাক্কা বাংলাদেশের জন্য ফারজানা হক পিংকির কোভিড পজিটিভ হওয়া। দলের মূল ব্যাটারকে হারিয়ে কিছুটা ব্যাকফুটে জ্যোতির দল। তবুও ক্যাপ্টেনের কন্ঠে আশার বাণী, “অভিজ্ঞতা এবং দক্ষতার দিক থেকে অবশ্যই আমরা এগিয়ে। আমরা দীর্ঘদিন যাবত একত্রে আছি এবং টিম স্পিরিট বেশ ভালো। আমার বিশ্বাস মূল পর্বে যাওয়ার জন্য আমরা বড় প্রতিদ্বন্দ্বী। আমার দলের সক্ষমতার প্রতি আমার বিশ্বাস আছে, মাঠে আমাদের স্বাভাবিক খেলা এবং ধারাবাহিক থাকাটাই মূল লক্ষ্য।”

আবুধাবির অতিরিক্ত গরম আবহাওয়ায় মানিয়ে নিতে টলারেন্স ওভালে ৬ দিনের একটি কন্ডিশনিং ক্যাম্প করেছে বাংলাদেশ দল। ভিন্ন ভিন্ন সময়ে বেশ কয়েকটি প্র‍্যাক্টিস সেশন করে নিজেদের স্থানীয় উষ্ণ কন্ডিশনের সঙ্গে মানিয়ে নেয়ার সর্বোচ্চ চেষ্টা করেছে তারা। টলারেন্স ওভালে স্থানীয় একটি দলের বিপক্ষে দুইটি প্রস্তুতি ম্যাচ খেলেছে মেয়েরা। দিনের ম্যাচে ২৬ রানে ও ফ্লাডলাইটের আলোয় রাতের ম্যাচে ৩ উইকেটে জিতেছে বাংলাদেশ। প্রথম ম্যাচে ৬৪* রান করেছিলেন ফারজানা হক পিংকি, মূল পর্বে তাকে না পাওয়াটা বড় ধ্বাক্কাই বটে। এছাড়া উভয় ম্যাচে ভালো করেছেন অলরাউন্ডার রুমানা আহমেদ। আনুষ্ঠানিক প্রস্তুতি ম্যাচে স্বাগতিক আরব আমিরাত দলকে বড় ব্যবধানে হারিয়েছে বাংলাদেশ। রান পেয়েছেন ওপেনার মুর্শিদা, ক্যাপ্টেন নিগার ও মিডলঅর্ডার ব্যাটার মোস্তারি; মূল পর্বেও তাদের উইলোবাজির অপেক্ষায় থাকবে গোটা দল। বল হাতে দারুণ বোলিং করেছেন সালমা, লতা, মেঘলা। টুর্নামেন্ট শুরুর আগে সবাই আছে বেশ ছন্দে।

বরাবের মতোই স্পিন এটাকের উপর বড় ভরসা থাকবে টিম ম্যানেজমেন্ট এর; সালমা, রুমানা, ফাহিমা, নাহিদাদের অভিজ্ঞতা কাজে দেবে বেশ। এছাড়া মারুফা এবং তৃষ্ণার পেস বোলিং, রিতু এবং লতার মিডিয়াম পেসে তাকিয়ে থাকবে বাংলাদেশ। ব্যাটিংয়ে শামীমা, রুমানা, জ্যোতি, মুর্শিদা পালন করবেন মূল দায়িত্ব ; শেষদিকে দ্রুত রান তোলার ক্ষেত্রে মোস্তারি আর রিতুর উপর আশা থাকবে দলের।

চার কোয়ালিফাইং ইভেন্টে অংশ নেয়া বাংলাদেশ দু’বার চ্যাম্পিয়ন ও একবার রানার্সআপ হয়ে মূল ইভেন্টে উত্তীর্ণ হয়েছিল। আগের বাছাইপর্বগুলোর কন্ডিশন টাইগ্রেসদের স্লোয়ার বোলারদের বেশ সহায়তা করেছে। এবার তার কিছুটা ব্যতিক্রম হতে পারে। আবুধাবিতে শুরুর দুইদিনে রান হতে পারে বেশ। সেক্ষেত্রে আইরিশ এবং স্কটিশ মেয়েদের বিরুদ্ধে বিকল্প প্ল্যানে এগুতে হতে পারে কোচ মাহমুদ ইমনের।

তবে শীতপ্রধান দেশ তিনটি বাংলাদেশের গ্রুপে হওয়ায় কিছুটা চিন্তামুক্ত বাঘিনীরা। ১১০ ফারেনহাইট এবং ৭৫ ভাগ এর বেশী আদ্রতায় প্রস্তুতি ম্যাচগুলোতে অন্যান্য দলগুলোকে মাঠে টিকে থাকতে বেশ সংগ্রাম করতে দেখা গেছে। বাংলাদেশের দুটো ম্যাচ রাতে হওয়ায় এদিকে একটা সুবিধা রয়েছে টাইগ্রেসদের।

আজ থেকে শুরু হতে যাওয়া টুর্নামেন্টে এ গ্রুপে বাংলাদেশ প্রথম ম্যাচ খেলবে আয়ারল্যান্ড এর বিপক্ষে রাত ৯টায়, পরদিন একই সময়ে দ্বিতীয় ম্যাচে প্রতিপক্ষ স্কটল্যান্ড। যুক্তরাষ্ট্রের বিপক্ষে ২১ তারিখ পাঁচটায় গ্রুপ পর্বের শেষ ম্যাচ। বাংলাদেশের সবগুলো ম্যাচই জায়েদ স্টেডিয়ামে।

গ্রুপ বি তে খেলবে পাপুয়ানিউগিনি, থাইল্যান্ড, আরব আমিরাত ও জিম্বাবুয়ে।
দুই গ্রুপের শীর্ষ দুই দল সেমিফাইনালে খেলবে। ফাইনালে উত্তীর্ণ হওয়া দুটো দল পাবে দক্ষিণ আফ্রিকায় টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ খেলার টিকিট।

এই টুর্নামেন্ট হতে যাচ্ছে নারী ক্রিকেটের নতুন শুরু। আমিরাত থেকে ফিরে সরাসরি সিলেট যাবে বাংলাদেশ। সেখানে দুই সপ্তাহব্যাপী এশিয়া কাপ খেলবে তারা। আইসিসি নারী চ্যাম্পিয়নশীপে অন্তর্ভুক্ত হওয়া বাংলাদেশ এরপর থাকবে টানা খেলায়। বছরের শেষদিকে যাবে নিউ জিল্যান্ড। পরের বছর শুরুতে যাবে শ্রীলঙ্কা। বিরামহীন এই সূচিতে সবার ফিট থেকে ম্যাচ খেলা বড় চ্যালেঞ্জই বটে।

সম্পূর্ণ বাছাই টুর্নামেন্ট সরাসরি সম্প্রচার করবে আইসিসি টিভি ও ফ্যানকোড। তবে, দুঃখজনক ব্যাপার বাংলাদেশ থেকে দুই প্লাটফর্মের একটিতেও সরাসরি উপভোগ করা যাবে না খেলা।

বাংলাদেশ স্কোয়াডঃ
নিগার সুলতানা জ্যোতি (ক্যাপ্টেন), শারমিন আক্তার সুপ্তা, শামিমা সুলতানা, সোহেলি আক্তার, রুমানা আহমেদ, রিতু মনি, লতা মন্ডল, সালমা খাতুন, সোবহানা মোস্তারি, ফাহিমা খাতুন, নাহিদা আক্তার, মুর্শিদা খাতুন, ফারিহা তৃষ্ণা, সানজিদা আক্তার মেঘলা ও মারুফা আক্তার।