Cricketkhor

"ডাল ভাতের সাথে ক্রিকেট খাই,
টাইগারদের জন্য গলা ফাটাই"

হ্যাটট্রিক জয় নিয়ে সেমিফাইনালে ‘কোয়ালিফায়ার কুইন্স’রা

Sayem

Sayem

টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ বাছাইপর্বে গ্রুপ পর্বের শেষ ম্যাচে বড় ব্যবধানে জিতেছে বাংলাদেশ দল। যুক্তরাষ্ট্রের বিপক্ষে আগে ব্যাট করে জ্যোতি-মুর্শিদার রেকর্ড জুটিতে ভর করে বড় সংগ্রহ গড়ার পর নিয়ন্ত্রিত বোলিংয়ে সহজ জয় পেয়েছে বাংলাদেশ দল। ক্যারিয়ারসেরা ইনিংস খেলে ম্যাচসেরা হয়েছেন মুর্শিদা খাতুন।

বাছাই টুর্নামেন্টে বাংলাদেশ গিয়েছিল হট ফেভারিট হিসেবে। গ্রুপ পর্বটা নিজেদের মতো করে খেলে একচ্ছত্র আধিপত্য দেখিয়ে এবার বাংলাদেশের লক্ষ্য আর মাত্র একটি জয়। সেমিফাইনালে কাংখিত জয় পেলেই ২০২৩ টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে দক্ষিণ আফ্রিকায় খেলার টিকিট পাবে ‘কোয়ালিফায়ার কুইন্স’দের দলটি।

ক্যাপ্টেন এদিনও ছুঁয়েছেন ফিফটি

আবুধাবিতে টস জিতে আবারও ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয় বাংলাদেশ দল। এদিনও একই একাদশ নিয়ে খেলতে নামে জ্যোতির দল। গ্রুপ পর্বের তিন ম্যাচেই অপরিবর্তিত একাদশ নিয়ে খেলে বাংলাদেশ।

ব্যাটিংয়ে নেমে প্রথম ওভারে সাত রান তোলার পর দ্বিতীয় ওভারটি মেইডেন আদায় করে নেন স্নিগ্ধা পল। স্নিগ্ধার দ্বিতীয় ওভারে বোল্ড হয়ে ১০ রান করে শামীমা সাজঘরে ফেরেন। এরপর ক্যাপ্টেন জ্যোতি এসে জুটি বাঁধেন মুর্শিদার সঙ্গে। নবম ওভারে দলীয় ফিফটি তুলে নেন তারা। দশ ওভার শেষে ৫৬-১ এ দাঁড়ায় বাংলাদেশের স্কোর। এরপর খেলার এপ্রোচ বদল করে দুই ব্যাটার। পরের দুই ওভারে ২৬ রান তুলে পানিবিরতিতে যায় তারা। খানিক বাদে ৭ চারের মারে ক্যারিয়ারে দ্বিতীয় ফিফটি তুলে নেন মুর্শিদা খাতুন। পনেরোতম ওভারে দলীয় শতরান তুলে ফেলে বাংলাদেশ দল। সতেরোতম ওভারে চার মেরে দ্বিতীয় উইকেট জুটিতে শতরান পূর্ণ করেন জ্যোতি। শেষদিকে ব্যাটে ঝড় তোলেন দুই ব্যাটার। ক্যাপ্টেন নিজে তুলে নেন টুর্নামেন্টে দ্বিতীয় ফিফটি। ছক্কা মেরে ইনিংসের ইতি ঘটান জ্যোতি। বাংলাদেশ পায় ১৫৮ রানের বিশাল পুঁজি, ১৫৮ রান টি-টোয়েন্টিতে বাংলাদেশের দ্বিতীয় সর্বোচ্চ দলীয় ইনিংস। জ্যোতি ৫৬ রানে অপরাজিত থাকেন। অপরদিকে দীর্ঘদিন পর বড় ইনিংস খেলা মুর্শিদা নিজের ক্যারিয়ার সর্বোচ্চ রান করেন। তার ৭৭* রানের ইনিংসটি বাংলাদেশের হয়ে টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটে ব্যক্তিগত তৃতীয় সর্বোচ্চ ইনিংস!

দ্বিতীয় উইকেট জুটি মুর্শিদা খাতুন ও নিগার সুলতানা জ্যোতি যোগ করেন ১৩৮ রান।
১৩৮(৯৯)* এই জুটিঃ
মেয়েদের টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ বাছাইপর্বে সেরা জুটি।
•আন্তর্জাতিক টি-টোয়েন্টিতে বাংলাদেশের মেয়েদের দ্বিতীয় সেরা জুটি।
•দ্বিতীয় উইকেটে বাংলাদেশের সর্বোচ্চ রানের জুটি।
•সবমিলিয়ে আন্তর্জাতিক টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটে দ্বিতীয় উইকেটে এগারোতম সর্বোচ্চ রানের জুটি।

ব্যাটিংয়ে নেমে প্রথম ওভারেই দিনের সেরা বোলার স্নিগ্ধা পলকে হারায় যুক্তরাষ্ট্র। আরেক ওপেনার রান আউট হয়ে ফেরেন শীঘ্রই। পাওয়ারপ্লে তারা শেষ করে ২৩-৩ এ। এরপর লিসা রামজিতকে নিয়ে ইনিংস গড়ার চেষ্টা করেন ক্যাপ্টেন সিন্ধু। আর কোনো উইকেট না হারিয়ে ইনিংসের মাঝপথ তারা পার করে ৩৫-৩ রানে। তেরোতম ওভারে যুক্তরাষ্ট্র ইনিংসের দলীয় অর্ধশতক পার করেন এ দু’জনে। ধীরেসুস্থে এগোতে থাকা এই জুটির ব্যপ্তি ষাট রান পার করে। দলীয় ক্যাপ্টেন সিন্ধু শ্রীহর্ষ ৫৭ বলে নিজের ফিফটি তুলে নেন। শেষ ওভারে দলীয় শতরান পার করে দলটি। ততক্ষণে বাংলাদেশের জয় নিশ্চিত হয়ে গিয়েছিল। সিন্ধু-রামজিত ৯১ রানের বড় জুটি গড়লেও তাতে দলের হারের ব্যবধান কমেছে মাত্র। ১০৩ রানে যুক্তরাষ্ট্রের ইনিংসের পরিসমাপ্তি ঘটলে বাংলাদেশ পায় ৫৫ রানের বিশাল জয়। ক্যাপ্টেন সিন্ধু করেন ৭৪* রান।

এই জয়ের সুবাদে গ্রুপ পর্বের তিন ম্যাচে তিন জয় নিয়ে গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হয়েই সেমিফাইনালে উত্তীর্ণ হলো টিম টাইগ্রেস। গ্রুপ পর্বের শেষ দিনে রাতের ম্যাচের ফলাফল এলে জানা যাবে সেমিফাইনালে বাংলাদেশ কাদেরকে পাচ্ছে প্রতিপক্ষ হিসেবে। একদিন বিরতি দিয়ে ২৩ তারিখ রাতে হবে সেমিফাইনালের দুই ম্যাচ। ফাইনালে যাওয়া দুই দল পাবে দক্ষিণ আফ্রিকায় টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ খেলার সুযোগ।

সংক্ষিপ্ত স্কোরঃ
বাংলাদেশ ১৫৮-১(২০)
শামীমা ১০, জ্যোতি ৫৬(৪০)*, মুর্শিদা ৭৭(৬৪)*;
স্নিগ্ধা ২৪-১।
যুক্তরাষ্ট্র ১০৩-৩(২০)
সিন্ধু ৭৪(৭১), লিসা ২৬;
সালমা ৩-০-১২-১, নাহিদা ৩-০-১৮-১।