Cricketkhor

"ডাল ভাতের সাথে ক্রিকেট খাই,
টাইগারদের জন্য গলা ফাটাই"

জীবনের সবচাইতে বড় পরীক্ষার মুখোমুখি সিকান্দার রাজা

Arfin Rupok

Arfin Rupok

সিকান্দার রাজা, জিম্বাবুয়ে ক্রিকেটের সেরা অলরাউন্ডারের একজন। ক্রিকেটের বাইশ গজে ব্যাটে – বলে লড়াই করা রাজা সর্বশেষ আফগানিস্তান সফরে কাটিয়েছেন নিদ্রাহীন রাত, লড়েছেন ব্যথার সাথে। তবুও পিছুপা হননি, খেলেছেন দেশের জার্সি গায়ে। এবার সেই নিদ্রাহীন রাত্রী যাপনের কারণগুলো প্রকাশ করলেন এই অলরাউন্ডার।

দেশের জার্সিতে খেলার স্বপ্ন সবারই থাকে, থাকে নিজের সেরাটা উজাড় করে দেওয়ার প্রচেষ্টাও। তাই বলে নিদ্রাহীন রাত্রী যাপন করে খেলার বিষয়টি কিছুটা অবাকই করে। আর যখন দলের সিনিয়ন ক্রিকেটার ব্রেন্ডন টেলর, ক্রেইগ আরভিন, চামু চিভাভা, কাইল জারভিস এবং টেন্ডাই চাতারারা দলের সাথে থাকেনা তখন রাজাকে তো একটু চাপ নিতেই হয়! রাজাও নিয়েছেন দায়িত্ব, লড়েছেন বাইশ গজে।

মূলত সিনিয়র ক্রিকেটারদের অনুপস্থিতির বিষয়টি অনুধাবন করেই আফগান সফরে অংশ নেওয়ার সাহসী সিদ্ধান্তটি নিয়েছিলেন রাজা। পরবর্তী সময়ে রাজার বাহুতে (কাঁধে)বেশ ব্যথা অনুভব করছিলেন, টিউমারের মতো দেখা দিলেও সেটি টিউমার না কি ক্যান্সার সেটি দেখতে বায়োপসিও করিয়েছেন রাজা। বায়োপসি হলো একটি চিকিৎসা পরীক্ষা। যা সাধারণত সার্জন, ইন্টারভিশনাল রেডিওলজিস্ট বা একটি ইন্টারভিশনাল কার্ডিওলজিস্ট দ্বারা সম্পাদিত হয়ে থাকে। প্রক্রিয়াটিতে কোনও রোগের উপস্থিতি বা ব্যাপ্তি নির্ধারণের জন্য পরীক্ষার নমুনা কোষ বা টিস্যু আহরণ করা হয়। এখান থেকে জানা যায় ক্যান্সারে আক্রান্ত কি না!

৩৪ বছর বয়সী মিডল অর্ডার ব্যাটসম্যান নর্থার্ন্স বনাম সাউদার্নসের মধ্যকার ম্যাচে ব্যথা অনুভব করেন। যেটি ছিলো আফগানিস্তানের বিপক্ষে খেলার আগেই, সেই সময় রাজা ভেবেছিলেন এটা স্বাভাবিক আঘাত। কিন্তু পরবর্তী সময়ে টেস্ট চলাকালীন সময়ে পরিস্থিতি অবনতি হতে থাকে এবং রাজা সারা রাত জেগে থাকতেন। ব্যথা ও নিদ্রাহীন রাত্রি যাপন করা সত্বেও দেশের জন্য লড়াই করে যাওয়া নিয়ে ‘নিউজডে উইকেন্ডার’ স্পোর্টের কাছে বলেন, “নিজের দেশের হয়ে খেলতে যাওয়ার জন্য বড় ত্যাগ স্বীকার করেছি। এই সময়ে দলের চিকিৎসকরা আমার জন্য চব্বিশ ঘন্টা কাজ করেছিলেন। এবং আমি চেষ্টা করেছি কীভাবে জিম্বাবুয়ে ক্রিকেটে আমার সেরাটা দেওয়া যায়!”

পরিশেষে নিজের চিকিৎসার বিষয়ে নিউজডে উইকেন্ডারকে রাজা বলেন, “আমাকে জরুরীভাবে সার্জারি করা হয়েছে এবং এই সার্জারি ভালভাবে চলেছে। চিকিৎসকরা আমার হাড়ের টিস্যু নমুনার জন্য ড্রিল করে যা পরীক্ষার জন্য পরীক্ষাগারে প্রেরণ করেছেন। এই রেজাল্ট আসতে ১০ দিন সময়ের প্রয়োজন।”

১০ দিন পর জানা যাবে আসলে টিউমার না কি ক্যান্সারে আক্রান্ত রাজা।