২৫শে জুলাই, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ
আজকের সর্বশেষ সবখবর

হ্যাজলউডের বোলিং তাণ্ডবে অস্ট্রেলিয়ার জয়

প্রতিবেদক
Arfin Rupok
শনিবার, ১২ সেপ্টেম্বর , ২০২০ ৯:৫৩

টি-২০ সিরিজে হারের পর তিন ম্যাচ ওয়ানডে সিরিজের প্রথম ম্যাচে জয় পেয়েছে টিম অস্ট্রেলিয়া। ম্যানচেস্টারে ম্যাক্সওয়েল-মার্শের ব্যাটিংয়ের পর হ্যাজলউডের বোলিং তাণ্ডবে ১৯ রানের জয়ে সিরিজে ১-০ তে এগিয়ে গেলো সফরকারী অস্ট্রেলিয়া।

তিন ম্যাচ ওয়ানডে সিরিজের প্রথম ম্যাচে টস হেরে ব্যাটিংয়ের সুযোগ পান ফিঞ্চ বাহিনী। ব্যাটিংয়ে নেমে শুরুটা ভালো হয়নি সফরকারীদের। দলীয় ১৩ রানেই ওপেনার ওয়ার্নারের বিদায়। এরপর নিয়মিত বিরতিতে উইকেট হারাতে থাকে দলটি। দলীয় ১২৩ রানেই সাজঘরে ফেরেন দলের ৫ ব্যাটসম্যান। অল্প রানেই অলআউট হবার সম্ভাবনা জাগলে মার্শ-ম্যাক্সওয়েলের ব্যাটে ঘুরে দাঁড়ায় অস্ট্রেলিয়া। ষষ্ঠ উইকেট জুটিতে ১২৬ রান সংগ্রহ করেন ম্যাক্সওয়েল-মার্শ।

দলীয় ২৪৯ এবং ব্যক্তিগত ৭৭ রানে ম্যাক্সওয়েলের বিদায় ঘন্টা বাজিয়ে ইংল্যান্ডকে ম্যাচে ফেরান আর্চার। এরপর ইংল্যান্ডের বোলারদের নিয়ন্ত্রিত বোলিংয়ে ৫০ ওভার শেষে ২৯৪ রানের চ্যালেঞ্জিং স্কোর দাঁড় করায় টিম অস্ট্রেলিয়া। অস্ট্রেলিয়ার পক্ষে সর্বোচ্চ ৭৭ রান আসে ম্যাক্সওয়েলের ব্যাটে, এছাড়াও মার্শের ব্যাট থেকে আসে ৭৩ রান। ইংল্যান্ডের বোলারদের পক্ষে আর্চার এবং উড ৩ টি করে উইকেট শিকার করেন।

জয়ের জন্য ইংল্যান্ডের সামনে লক্ষ্যমাত্রা দাঁড়ায় ২৯৫ রান। বর্তমান সময়ে কঠিন না হলেও ম্যানচেস্টারে রেকর্ড রান তাড়া করে জিততে হবে ইংল্যান্ডকে।

২৯৫ রানের জয়ের লক্ষ্যে খেলতে নেমে শুরুতেই চাপে পড়ে স্বাগতিক ইংল্যান্ড। হ্যাজলউডের দারুণ বোলিংয়ে মাত্র ১৩ রানেই দুই উইকেট হারিয়ে বসে ইংল্যান্ড। এরপর তৃতীয় উইকেট জুটিতে ঘুরে দাঁড়ানোর চেষ্টা করে অধিনায়ক মরগান এবং ওপেনার জনি বেয়ারস্টো। তৃতীয় উইকেট জুটিতে ৪২ রান যোগ করে ব্যক্তিগত ২৩ রানে সাজঘরে ফেরেন মরগান। এরপর মাত্র ২ রান যোগ হতেই জ্যাম্পার বলে আউট হন বাটলার। ৫ম উইকেট জুটিতে বেয়ারস্টো – স্যাম বিলিংসের ব্যাটে ঘুরে দাঁড়ায় ইংল্যান্ড। দারুণ ব্যাটিংয়ে
এক প্রান্ত আগলে রেখে ফিফটি তুলে নেন বেয়ারস্টো। অপরদিকে অস্ট্রেলিয়ার বোলারদের নিয়ন্ত্রিত বোলিংয়ে ইংল্যান্ডকে চেপে ধরে অস্ট্রেলিয়া।

বেয়ারস্টো-বিলিংসের ব্যাটে জয়ের স্বপ্ন দেখতে শুরু করে ইংল্যান্ডের ভক্তরা। ঠিক তখনি জ্যাম্পার বলে সাজঘরে ফেরেন বেয়ারস্টো। ভাঙ্গে বিলিংসের সাথে ৫ম উইকেটে গড়া ১১৩ রানের জুটি। এরপর একপ্রান্ত আগলে রেখে ইংল্যান্ডকে জয়ের দিকে এগিয়ে নিতে থাকেন বিলিংস। কিন্তু আরেক প্রান্তে ব্যাটসম্যানদের যাওয়া-আসার মিছিলে দিশেহারা হয়ে পড়েন বিলিংস। যদিও মারমুখী ব্যাটিংয়ে বিলিংস তুলে নেন সেঞ্চুরি। কিন্তু সেটি যে জয়ের জন্য যথেষ্ট ছিলো না তার প্রমাণ পেয়েছে নির্ধারিত ওভার শেষে। দলীয় ৫০ তম ওভারের শেষ বলে বিলিংসকে আউট করার মধ্য দিয়ে অস্ট্রেলিয়াকে ১৯ রানের জয় এনে দেন মার্শ।

ইংল্যান্ডের পক্ষে সর্বোচ্চ ১১৮ রান আসে বিলিংসের ব্যাটে। এছাড়াও বেয়ারস্টোর ব্যাট থেকে আসে ৮৪ রান। অস্ট্রেলিয়ার বোলারদের পক্ষে সর্বোচ্চ ৪ উইকেট শিকার করেন জ্যাম্পা। এছাড়াও ১০ ওভার হাত ঘুরিয়ে মাত্র ২৬ রানের বিনিময়ে ৩ উইকেট শিকার করেন হ্যাজলউড।

সংক্ষিপ্ত স্কোরকার্ড:
অস্ট্রেলিয়া- ২৯৪/৯ (৫০ ওভার)
ম্যাক্সওয়েল ৭৭, মার্শ ৭৩, স্টয়নিস ৪৩
উড ৫৪/৩, আর্চার ৫৭/৩, রশীদ ৫৫/২

ইংল্যান্ড- ২৭৫/৯ (৫০ ওভার)
বিলিংস ১১৮, বেয়ারস্টো ৮৪, মরগান ২৩
জ্যাম্পা ৫৫/৪, হ্যাজলউড ২৬/৩, মার্শ ২৯/১

ফলাফল: অস্ট্রেলিয়া ১৯ রানে জয়ী।
ম্যাচ সেরা: হ্যাজলউড।

,

মতামত জানান :