১৪ই জুলাই, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ
আজকের সর্বশেষ সবখবর

নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে সিরিজ জেতার জন্য আমরা প্রাণপণ চেষ্টা করবো___রাসেল ডোমিঙ্গো

প্রতিবেদক
ডেস্ক নিউজ
মঙ্গলবার, ২৩ ফেব্রুয়ারি , ২০২১ ৭:৪০


তিনটি করে ওয়ানডে এবং টি২০ ম্যাচ খেলতে নিউজিল্যান্ডের পথে এখন বাংলাদেশ ক্রিকেট দল, নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে নিউজিল্যান্ডের মাটিতে এর আগে কখনো সিরিজ জিততে না পারলেও এবার দৃঢ় প্রতিজ্ঞাবদ্ধ রাসেল ডোমিঙ্গোর শীর্ষরা, নিউজিল্যান্ড উড়াল দেওয়ার আগে ইএসপিএনের এক সাক্ষাতকারে আগামী সিরিজ নিয়ে নিজেদের পরিকল্পনা এবং প্রত্যাশার কথাও তুলে ধরেন বাংলাদেশ কোচ, দল এবং সাকিব ইস্যু নিয়ে আরও যা বলেছেন কোচ রাসেল ডোমিঙ্গো,,

ইএসপিএনঃ নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে নিউজিল্যান্ডের মাটিতে বাংলাদেশ এর আগে কখনো সিরিজ জিতে নি, কিভাবে দেখেন?
ডোমিঙ্গোঃ আমরা জানি এটাও একটা কঠিন সফর হতে যাচ্ছে, এই মুহূর্তে ওরা খুব ভালো ক্রিকেট খেলছে। যখন থেকে আমি দলে যোগ দেই তখন থেকে দেখছি আমাদের বেশিরভাগ খেলোয়াড় ওয়ানডে ক্রিকেট খেলতে পছন্দ করে, আমরা প্রতিযোগিতামূলক একটা সিরিজের অপেক্ষা করছি।

ইএসপিএনঃ ফাস্ট বোলাররা সেখানে বড় ভূমিকা পালন করবে, এই সফরে সাদা বলে তাদের মধ্যে কেমন উন্নতি আশা করছেন?
ডোমিঙ্গোঃ সাকিবকে ছাড়া আমরা খুব বেশি ওয়ানডে ম্যাচ খেলিনি, সেক্ষেত্রে দলে ভারসাম্য আনার জন্য আমরা একজন অলরাউন্ডার খোঁজার চেষ্টা করছি যেটা খুবই গুরুত্বপূর্ণ। টেস্টে মেহেদী মিরাজ সেটা করতে পারবে যা সে প্রমাণ করেছে, কিন্তু আমাদের আরও কিছু অলরাউন্ডার তৈরি করা উচিত যেখানে আমাদের হাতে বিকল্প থাকবে। আরেকটা জায়গা হচ্ছে লোয়ার মিডল অর্ডার নিয়ে খেলা শেষ করা, আমরা চেষ্টা করছি শেষ মুহূর্তে পাওয়ার হিটিংয়ের জন্য কাউকে তৈরি করতে, কাউকে দায়িত্ব দেওয়া হবে ম্যাচ শেষ করে আসার জন্য। এই জায়গাগুলাতেই আমরা আগামী কয়েকমাস উন্নতি করার চেষ্টা করবো।

ইএসপিএনঃ এই জায়গাতে মোহাম্মদ সাইফুদ্দিনের নামটি মনে আসে, সে প্রায় চার বছর ধরে খেলছে, তার উন্নতি নিয়ে আপনার মতামত কি?
ডোমিঙ্গোঃ ওর এখনো অনেক কাজ করতে হবে, বিশেষ করে ব্যাটিংয়ে। ব্যাটিংয়ের ক্ষেত্রে সে এখনো কিছুটা অনুপযোগী, বেশ কয়েকটা ইঞ্জুরির থেকে সেড়ে উঠেছে সে। আমরা চাই ঘন্টা প্রতি সে আরও ৫ থেকে ৬ কেপিএইচ গতি বাড়িয়ে করুক, আমার মনে হয় বোলিং কোচ ওটিস গিবসন ও একই চিন্তা করে। যাতে সে নিয়মিত ১৩২-১৩৪ কেপিএইচ গতিতে বল করতে পারে এমনটাই চাই আমরা। সাদা বলে সে আমাদের জন্য দারুণ প্যাকেজ, কিন্তু আমি যেটা নিয়ে উদ্বিগ্ন ছিলাম সে এখনো সেভাবে পুরিয়ে যায়নি।

ইএসপিএনঃ অধিনায়ক হিসেবে তামিম ইকবালের জন্য কি চ্যালেঞ্জ অপেক্ষা করছে? সিরিজ জয় নিয়ে কি বাংলাদেশ আশাবাদী?
ডোমিঙ্গোঃ অবশ্যই, সিরিজ জিততে আমরা আশাবাদী। আমরা ভালো কিছু পেসার নিয়ে যাচ্ছি, তাসকিন, হাসান মাহমুদ, মুস্তাফিজুর রহমান, এবং সাইফুদ্দিনের সাথে শরীফুল ইসলাম মিলে আমাদের পেস আক্রমণ খুবই ভালো। ফাস্ট বোলারদের নিয়ে আমরা আক্রমণাত্মক ক্রিকেট খেলতে চাই, আমার মনে হয় বাংলাদেশ বিগত দিন গুলাতে দেশের বাইরেও স্পিনারদের উপর নির্ভরশীল ছিলো আমরা এখন এটা পরিবর্তন করার চেষ্টা চালাচ্ছি। আমরা নতুন বলে সাফল্য আনার চেষ্টা করবো এবং মিডল ওভার গুলাতেও পেসার দিয়ে আক্রমণ চালাবো, শুধুমাত্র স্পিন না। আর এই চ্যালেঞ্জটাই অপেক্ষা করছে তামিমের জন্য,

ইএসপিএনঃ বড় অর্থে আপনি দায়িত্ব নেওয়ার পর সব ফরম্যাট মিলিয়ে দল কতটা এগিয়েছে বলে মনে করেন?
ডোমিঙ্গোঃ ওয়ানডে এবং টি২০ যেভাবে চলছে তাতে আমি খুব খুশি, ভারতের মাটিতে ভারতের বিপক্ষে টি২০ জয় এবং ৩য় ম্যাচেও কাছাকাছি যাওয়া, আমার মনে হয় আমরা ওই ম্যাচটাও জিততে পারতাম। আমরা টানা ছয়টি ওয়ানডে ম্যাচে জয়লাভ করেছি, টি২০ তেও আমরা ৬ টি ম্যাচ জিতেছি যা অবশ্যই ভালো প্রতিদান। সাদা বলের ক্ষেত্রে দল অবশ্যই সঠিকপথে এগিয়ে যাচ্ছে, অবশ্য টেস্টে আমরা যেখানে থাকার কথা সেখান থেকে আমরা অনেক দূরে এখনো। টেস্ট ক্রিকেটে আমাদের পরিবেশটা পরিবর্তন করা উচিত, আমাদের এমন কিছু প্লেয়ার তৈরি করতে হবে যারা টেস্ট খেলার জন্য মুখিয়ে থাকবে, টেস্ট খেলার জন্য উপযুক্ত দক্ষ হবে, মাঠে নেমে পাঁচদিন খেলার সাহস থাকবে এমন প্লেয়ার দরকার আর এটা আমাদের জন্য বড় চ্যালেঞ্জিং।আমরা জানি ওয়েস্ট ইন্ডিজের সাথে সিরিজ হারটা চরম হতাশার, টেস্টে আমরা কতটা পিছিয়ে আছি এই হার সেটাই প্রমাণ করেছে।

ইএসপিএনঃ ওয়েস্ট ইন্ডিজের সাথে টেস্ট সিরিজ হারের পর বাংলাদেশ দলের প্রতিক্রিয়া কি ছিলো?
ডোমিঙ্গোঃ এমন পারফরমেন্স নিয়ে সবাই খুব হতাশ ছিলো, আমরা দেখেছি প্রথম টেস্টে আমরা প্রথম চার দিনে এগিয়ে ছিলাম এবং পঞ্চম দিনে এসে আমরা কিছু ভুল সিদ্ধান্ত নিলাম। ২য় টেস্টে আমরা ভালো খেলতে পারিনি, যেভাবে সিরিজ হাতছাড়া হলো কোচরা সবাই কষ্ট পেয়েছি! কিন্তু এটাই আন্তর্জাতিক ক্রিকেটের প্রকৃতি। আমাদের হাতে এখন সুযোগ আছে নিউজিল্যান্ড সিরিজে ভুলগুলা শোধরানো, এবং এমন কিছু করার যা বাংলাদেশ দল আগে কখনো করে দেখাতে পারেনি আর তা হচ্ছে সিরিজ জেতা। এটার জন্য আমরা আমাদের প্রাণপণ দিয়ে চেষ্টা করবো।

ইএসপিএনঃ অধিনায়ক মমিনুল হক ওয়েস্ট ইন্ডিজের সাথে কোথায় ভুল করেছে বলে আপনি মনে করেন?
ডোমিঙ্গোঃ অধিনায়ক হিসেবে মমিনুলের আরও অনেক কিছু শেখার আছে, কিন্তু তার মন মানসিকতা ঠিক আছে। সে দলের প্রতি খুব মনোযোগী, দলকে সে সামনে থেকে নেতৃত্ব দিতে চায়। অধিনায়কত্বটা ওর জন্য নতুন অভিজ্ঞতা, আগামীতে সে আরও ভালো করবে। আমাদের সর্বোচ্চ দিয়ে আমরা তাকে সাপোর্ট,  উপদেশ এবং দিকনির্দেশনা দিচ্ছি। তবে অধিনায়কত্বের কিছু উপায় সে নিজেও খুঁজে বের করতে হবে যেটার জন্য সে চেষ্টা করতেছে।

ইএসপিএনঃ সবশেষে, আইপিএলের জন্য শ্রীলংকা সিরিজ না খেলা নিয়ে সাকিবের সিদ্ধান্ত নিয়ে আপনার অবস্থান কোথায়?
ডোমিঙ্গোঃ কঠিন প্রশ্ন! একজন কোচ হিসেবে আমি সবসময় সাকিবকে দলে চাই, আরেক দিক থেকে যদি চিন্তা করি, যদি একজন প্লেয়ার নিজে না থাকতে চায় এবং ক্যারিয়ারের এই পর্যায় এসে কোন সুযোগ আসে তাহলে এই সিদ্ধান্ত গুলি নেওয়ার ব্যাপারে তাকে বিচার করা কঠিন। আমি মনে করি সিদ্ধান্তটা সে নিয়েছে, সে বিভিন্ন মহল থেকে মতামত নিতে পারে কিন্তু সিদ্ধান্তটা সাকিবের। কোচ হিসেবে আমরা তার সিদ্ধান্তকে সম্মান জানাই, এটা তার ক্যারিয়ার এবং তার জীবিকানির্বাহের উপায়। সুতরাং আমাদের এসব নিয়ে মন্তব্য করা উচিত নয়।

সোর্সঃ ইএসপিএন ক্রিকইনফো।

মতামত জানান :