আমিরাতের দুই ক্রিকেটার নিষিদ্ধ

  • প্রকাশিত সময় : সোমবার, ১৪ সেপ্টেম্বর, ২০২০
  • শেয়ার করুন

  • Facebook



আইসিসি ‘অ্যান্টি করাপশন রুল’ এর অন্তত পাঁচটি ধারা ভঙ্গের দায়ে নিষিদ্ধ হয়েছেন আরব আমিরাতের সিনিয়র দুই ক্রিকেটার। গতকাল এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বিষয়টি জানিয়েছেন আইসিসি দুর্নীতি দমন ইউনিট (আকসু)।

বিজ্ঞপ্তি প্রকাশের পরপরই নিষেধাজ্ঞার আদেশ কার্যকর হলেও এই নিষেধাজ্ঞার মেয়াদ কতদিন, সেটা এখনো জানায়নি আইসিসি।

নিষেধাজ্ঞা পাওয়া সংযুক্ত আরব আমিরাতের দুই ক্রিকেটার হলেন ৩৮ বছর বয়সী মিডিয়াম পেসার আমির হায়াত ও ৩৫ বছর বয়সী ব্যাটসম্যান আশফাক আহমেদ।

গত বছরের অক্টোবরে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ বাছাইপর্বে উক্ত দুজন ‘অ্যান্টি করাপশন রুল’ এর বিভিন্ন ধারা ভঙ্গ করে ম্যাচ ফিক্সিংয়ের চেষ্টা করেছেন বলে জানায় আইসিসি।

তাদের বিরূদ্ধে আনীত অভিযোগগুলোর মধ্যে আছে আইসিসির ‘অ্যান্টি করাপশন রুল’ আর্টিকেল ২.১.৩ এর দুইটি গুরুত্বপূর্ণ ধারাঃ
আন্তর্জাতিক ম্যাচ পাতানোর চেষ্টা বা ম্যাচের ফল অন্যায়ভাবে প্রভাবিত করার চেষ্টা ;
অন্যায় প্রস্তাব(ফিক্সিং প্রস্তাব) পেয়েও আইসিসির দুর্নীতি দমন ইউনিটকে বিস্তারিত না জানানো।
এছাড়াও আর্টিকেল ২.৪.২, আর্টিকেল ২.৪.৩, আর্টিকেল ২.৪.৪, আর্টিকেল ২.৪.৫ এসব এন্টি করাপশন কোড ভেঙ্গেছেন তারা দুজনে।

এর আগে উক্ত টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ বাছাইপর্ব চলাকালে আশফাক আহমেদকে এমিরেটস ক্রিকেট বোর্ড নিষিদ্ধ করেছিলো, পাশাপাশি হায়াতের বিরূদ্ধেও বেশ কয়েকটি অভিযোগ ছিলো এমিরেটস ক্রিকেট বোর্ডের। এবার আইসিসির তদন্তেও দোষী সাব্যস্ত হলেন তারা।

নিজেদের নির্দোষ প্রমাণের জন্য যুক্তি-তর্ক উপস্থাপনের জন্য অভিযুক্ত দুই ক্রিকেটারকে ১৩ সেপ্টেম্বর থেকে দুই সপ্তাহের সময় দিয়েছে আইসিসি। তাদের জবাব পাওয়ার পর নিষেধাজ্ঞার সময়সীমা নির্ধারণ করে দেবে আইসিসি।

আমির হায়াত আরব আমিরাতের হয়ে ৯টি ওয়ানডে ও ৪টি টি-টোয়েন্টি ম্যাচ খেলেছেন, আশফাক আহমেদ খেলেছেন ১৬টি ওয়ানডে ও ১২টি টি-টোয়েন্টি ম্যাচ।

 

, , , ,

মন্তব্য করুন

এই বিভাগের আরো খবর