বেটা ভার্সন | ২৬শে জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ
আজকের সর্বশেষ সবখবর

টেলএন্ডারদের দৃঢ়তায় ইংলিশদের মাঝারি সংগ্রহ

প্রতিবেদক
Arfin Rupok
রবিবার, ১৩ সেপ্টেম্বর , ২০২০ ১০:২৯

জ্যাম্পার স্পিন ঘূর্ণির সাথে স্টার্ক-হ্যাজলউডদের নিয়ন্ত্রিত বোলিংয়ে ঘরের মাঠে দিশেহারা ইংল্যান্ড। দলের প্রয়োজনে টেলএন্ডাররা দায়িত্ব নিলেন ব্যাটিংয়ে, তিন ম্যাচ ওয়ানডে সিরিজের দ্বিতীয় ম্যাচে অস্ট্রেলিয়াকে ২৩২ রানের টার্গেট দিলো স্বাগতিক ইংল্যান্ড।

ঘরের মাঠ ম্যানচেস্টারে প্রথম ম্যাচে ১৯ রানে হারের পর আজ দ্বিতীয় ম্যাচে মাঠে স্বাগতিক অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে মাঠে নামে টিম ইংল্যান্ড। টস নামক ভাগ্য পরীক্ষায় জয়লাভ করে ইংল্যান্ডের অধিনায়ক নেন ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত। সিরিজে ফিরতে একাদশে আনেন দুই পরিবর্তন। মঈন আলী এবং উডের জায়গায় একাদশে সুযোগ হয় টম এবং স্যাম কারেনের। অপরদিকে অপরিবর্তিত একাদশ নিয়ে মাঠে নামেন সফরকারী অস্ট্রেলিয়া।

ইংল্যান্ডের হয়ে ওপেনিংয়ে আসেন রয় এবং বেয়ারস্টো। অস্ট্রেলিয়ার হয়ে বল হাতে আক্রমণে আসেন স্টার্ক। প্রথম ম্যাচের পর দ্বিতীয় ম্যাচেও শুরুটা ভালো হয়নি ইংল্যান্ডের। শুরু থেকেই দুই ওপেনারকে চেপে ধরেন স্টার্ক এবং হ্যাজলউড। গত ম্যাচে ৮৪ রানের ইনিংস খেলা বেয়ারস্টো দ্বিতীয় ম্যাচে সুপার ফ্লপ। দলীয় ২০ রানের মাথায় ব্যক্তিগত শূন্য রানে স্টার্কের বলে ক্যারির তালুবন্দি হয়ে ফেরেন সাজঘরে। এরপর বেশিক্ষন ক্রিজে থাকতে পারেননি আরেক ওপেনার জেসন রয়। দলীয় ২৯ এবং ব্যক্তিগত ২০ রানে স্টয়নিসের থ্রোতে রান আউট হয়ে ফেরেন সাজঘরে।

অধিনায়ক মরগান এবং রুটের ব্যাটে এগিয়ে যেতে থাকে ইংল্যান্ড। কিন্তু অস্ট্রেলিয়ার বোলারদের নিয়ন্ত্রিত বোলিংয়ে ইংল্যান্ডের তৃতীয় উইকেট জুটিতে খুব বেশী রান যোগ হয়নি। দলীয় ৯০ রানে রুট আউট হলে ভাঙ্গে ৬১ রানের জুটি। এরপর নিয়মিত বিরতিতে উইকেট হারাতে থাকে ইংল্যান্ড। দলীয় ১৪৯ রানে ৮ ব্যাটসম্যান ফেরেন সাজঘরে। এতে করে ২০০ রানের আগেই অলআউটের সম্ভাবনা জাগে। কিন্তু ৯ম উইকেট জুটিতে টম কারেন এবং আদিল রশীদের ব্যাটে ঘুরে দাঁড়ায় ইংল্যান্ড।

দুই টেলএন্ডারের দারুণ ব্যাটিংয়ে বাড়তে থাকে রানের চাকা। সাবলীল ভঙ্গিতে অস্ট্রেলিয়ার বোলারদের একের পর এক বাউন্ডারি হাঁকিয়ে ইংল্যান্ডকে সম্মানজনক সংগ্রহ এনে দেন তারা। ম্যাচে অধিনায়ক মরগানের ৪২ এবং রুটের ৩৯ রানের পর শেষ দিকে টম কারেনের ব্যাটে ৩৭ এবং রশীদের ব্যাট থেকে আসে অপরাজিত ৩৫ রান। এরফলে ২৩১ রানের পুঁজি পায় স্বাগতিক ইংল্যান্ড। অস্ট্রেলিয়ার বোলারদের পক্ষে জ্যাম্পা সর্বোচ্চ ৩ উইকেট শিকার করেন। এছাড়াও স্টার্ক ২ টি, হ্যাজলউড-মার্শ-ক্যামিন্স একটি করে উইকেট শিকার করেন।

সংক্ষিপ্ত স্কোরকার্ড:

ইংল্যান্ড- ২৩১/৯(৫০ ওভার)
মরগান ৪২, রুট ৩৯, কারেন ৩৭, রশীদ ৩৫*
জ্যাম্পা ৩৬/৩, স্টার্ক ৩৮/২, হ্যাজলউড ২৭/১

অস্ট্রেলিয়ার সামনে জয়ের লক্ষ্যমাত্রা ২৩২ রান। এক ম্যাচ হাতে রেখে সিরিজ নিশ্চিত করতে ম্যাচের দ্বিতীয় ইনিংসে ব্যাটিংয়ে নামবে ওয়ার্নার-ফিঞ্চরা।

, ,

মতামত জানান :