২৫শে জুলাই, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ
আজকের সর্বশেষ সবখবর

মুস্তাফিজ ঝলকে ফাইনালে গাজী গ্রুপ চট্টগ্রাম

প্রতিবেদক
Musaddik Mitu
মঙ্গলবার, ১৫ ডিসেম্বর , ২০২০ ৮:৩০

হোম অফ ক্রিকেট মিরপুর শেরে বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে বঙ্গবন্ধু টি-টোয়েন্টি কাপের দ্বিতীয় কোয়ালিফাই ম্যাচে টসে জিতে প্রথমে ব্যাটিং করার সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন বেক্সিমকো ঢাকার দলপতি মুশফিকুর রহিম!

বেক্সিমকো ঢাকার পক্ষে ব্যাট হাতে ইনিংসের উদ্ভোদন করতে আসেন সাব্বির রহমান রুম্মান ও মুক্তার আলী! ওপেনিং জুটিতে তারা যোগ করেন ১৯ রান! ব্যাক্তিগত ১১ রানে শরিফুল ইসলামের প্রথম শিকার হয়ে সাব্বির রহমান সাজঘরে ফিরলে বেক্সিমকো ঢাকার প্রথম উইকেটের পতন ঘটে।

সাব্বিরের পর ক্রিজে আসেন মোহাম্মদ নাইম শেখ! নাইম শেখ ক্রিজে আসার পরপরই ব্যাক্তিগত ৭ রানে নাহিদুল ইসলামের বলে সাজঘরে ফিরেন মুক্তার আলী! মুক্তারের পর ক্রিজে আসেন বেক্সিমকো ঢাকার দলপতি মুশফিকুর রহিম! তৃতীয় উইকেট জুটিতে নাইম-মুশফিক যোগ করেন ৩১ রান! ব্যাক্তিগত ১২ রানে রাকিবুল হাসানের বলে নাইম শেখ সাজঘরে ফিরলে দলীয় ৫০ রানের মাথায় বেক্সিমকো ঢাকা তাদের তৃতীয় উইকেট হারায়!

নাইমের পর ক্রিজে আসেন ইয়াসির আলী রাব্বি! চতুর্থ উইকেট জুটিতে ইয়াসির-মুশফিক যোগ করেন ২৫ রান! ব্যাক্তিগত ২৫ রানে মুসাদ্দেক হুসাইন সৈকতের বলে মুশফিকুর রহিম সাজঘরে ফিরলে বেক্সিমকো ঢাকা দলীয় ৭৫ রানের মাথায় বেক্সিমকো ঢাকা তাদের চতুর্থ উইকেটটি হারায়! মুশফিকের পর ক্রিজে আসেন আল-আমিন হুসাইন জুনিয়র! আল-আমিনের সাথে ১৯ রানের পার্টনারশিপ গড়ে ব্যাক্তিগত ২৪ রানে মুস্তাফিজুর রহমানের প্রথম শিকার হয়ে সাজঘরে ফিরেন ইয়াসির আলী রাব্বি!

ইয়াসিরের পর ক্রিজে আসেন আকবর আলী! ক্রিজে এসে ব্যাক্তিগত ২ রানে শরিফুল ইসলামের দ্বিতীয় শিকার হয়ে প্যাভিলিয়নে ফিরেন আকবর আলী! আকবরের পর ক্রিজে আসেন রবিউল ইসলাম রবি! রবিউল ক্রিজে আসার পরপরই ব্যাক্তিগত ২৫ রানে মুস্তাফিজুর রহমানের দ্বিতীয় শিকার হয়ে সাজঘরে ফিরেন আল-আমিন হুসাইন জুনিয়র।

আল-আমিনের পর ক্রিজে আসেন নাসুম আহমেদ! ক্রিজে এসে প্রথম বলেই মুস্তাফিজুর রহমানের তৃতীয় শিকার হয়ে প্যাভিলিয়নে ফিরে যান নাসুম আহমেদ! নাসুমের পর ক্রিজে আসেন রুবেল হুসাইন! শেষ ওভারে রান আউট হয়ে ব্যাক্তিগত ২ রানে সাজঘরে ফিরেন রুবেল হুসাইন! রুবেলের পর ক্রিজে আসেন শফিকুল ইসলাম! শেষ বলে শফিকুল ইসলামকে ব্যাক্তিগত শূন্য রানে সাজঘরে ফেরত পাঠান সৌম্য সরকার!

শেষ পর্যন্ত নির্ধারিত ২০ ওভারে সবকয়টি উইকেট হারিয়ে ১১৬ রান সংগ্রহ করে বেক্সিমকো ঢাকা! বেক্সিমকো ঢাকার পক্ষে ব্যাট হাতে আল-আমিন হুসাইন জুনিয়র ২৫(১৮) রান, মুশফিকুর রহিম ২৫(৩১) রান ও ইয়াসির আলী ২৪(২১) রান করেন! গাজী গ্রুপ চট্টগ্রামের পক্ষে বল হাতে মুস্তাফিজুর রহমান ৩ উইকেট, শরিফুল ইসলাম ২ উইকেট, সৌম্য সরকার, নাহিদুল ইসলাম, রাকিবুল হাসান ও মুসাদ্দেক হুসাইন সৈকত ১টি করে উইকেট নেন।

১১৭ রানের লক্ষ্যমাত্রা নিয়ে গাজী গ্রুপ চট্টগ্রামের পক্ষে ব্যাট হাতে ইনিংসের সূচনা করতে ক্রিজে আসেন লিটন দাস ও সৌম্য সরকার! ওপেনিং জুটিতে সৌম্য-লিটন যোগ করেন ৪৪ রান! ব্যাক্তিগত ২৭ রানে রান আউটের ফাদে পড়ে সৌম্য সরকার সাজঘরে ফিরলে গাজী গ্রুপ চট্টগ্রামের প্রথম উইকেটের পতন ঘটে!

সৌম্যর পর ক্রিজে আসেন গাজী গ্রুপ চট্টগ্রামের অধিনায়ক মোহাম্মদ মিথুন! দ্বিতীয় উইকেট জুটিতে লিটন দাস ও মোহাম্মদ মিথুন যোগ করেন ৫৭ রানের পার্টনারশিপ! তাদের জুটিতে গাজী গ্রুপ চট্টগ্রামের জয়টা অনেকটা সহজ হয়ে যায়! ব্যাক্তিগত ৪০ রানে আল-আমিন হুসাইন জুনিয়রের বলে লিটন দাস সাজঘরে ফিরলে গাজী গ্রুপ চট্টগ্রাম তাদের দ্বিতীয় উইকেটটি হারায়।

লিটনের পর ক্রিজে আসেন শামসুর রহমান শুভ! শামসুর ক্রিজে আসার পর ব্যাক্তিগত ৩৪ রানে মুক্তার আলীর বলে সাজঘরে ফিরেন মোহাম্মদ মিথুন! মিথুনের পর ক্রিজে আসেন মুসাদ্দেক হুসাইন সৈকত! শামসুর-মুসাদ্দেক মিলে দলকে জয়ের বন্দরে পৌছিয়ে মাঠ ছাড়েন।

শেষ পর্যন্ত ১৯.১ ওভারে ৩ উইকেট হারিয়ে জয়সূচক ১১৭ রান সংগ্রহ করে গাজী গ্রুপ চট্টগ্রাম! গাজী গ্রুপ চট্টগ্রামের পক্ষে লিটন দাস ৪০(৪৯) রান, মোহাম্মদ মিথুন ৩৪(৩৫) রান ও সৌম্য সরকার ২৭(২৩) রান করেন। বেক্সিমকো ঢাকার পক্ষে বল হাতে আল-আমিন হুসাইন জুনিয়র ও মুক্তার আলী ১টি করে উইকেট নেন।

বল হাতে ৪ ওভারে ৩২ রান দিয়ে ৩টি উইকেট নেওয়ায় ম্যান অফ দ্যা ম্যাচ নির্বাচিত হয়েছেন মুস্তাফিজুর রহমান।

বেক্সিমকো ঢাকার একাদশঃ- সাব্বি, মুক্তার, নাইম, মুশফিক(ক্যাপ্টেন), ইয়াসির, আল-আমিন, আকবর, রবিউল, নাসুম, রুবেল ও শফিকুল।

গাজী গ্রুপ চট্টগ্রামের একাদশঃ- লিটন, সৌম্য, মিথুন(ক্যাপ্টেন), শামসুর, মুসাদ্দেক, নাদিফ, সৈকত, নাহিদুল, মুস্তাফিজ, রাকিবুল ও শরিফুল।

বঙ্গবন্ধু টি-টোয়েন্টি কাপের ফাইনালে আগামী ১৮ই ডিসেম্বর জেমকন খুলনার মুখোমুখি হবে গাজী গ্রুপ চট্টগ্রাম।

মতামত জানান :